নিলামে ঝাঁপানোর স্ট্র্যাটেজি তৈরি,CSK-র নজরে রয়েছে পাঁচ বিধ্বংসী তারকা

২০২০-র দুঃস্বপ্নের মরশুমের স্মৃতি ঝেড়ে ফেলে অবিশ্বাস্য কামব্যাক ঘটিয়েছে ধোনির চেন্নাই। একেবারে ট্রফি জিতে সমালোচকদের জবাব দিয়েছে ইয়েলো ব্রিগেড। কেকেআরকে ফাইনালে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন ধোনিরা।

তবে চ্যাম্পিয়ন ব্রিগেডের সমস্ত ক্রিকেটারকে ধরে রাখতে পারেনি সিএসকে। নিলামের আগে মাত্র চারজনকে রিটেন করার অপশন ছিল চেন্নাইয়ের। সেই তালিকায় ধোনি, জাদেজার সঙ্গেই চেন্নাই রিটেন করেছে মঈন আলি এবং রুতুরাজ গায়কোয়াডকে। নিলামে দল গুছিয়ে নেওয়ার জন্য ইতিমধ্যেই পরিকল্পনা তৈরি করে ফেলেছে সিএসকে। একাধিক তারকাকে দলে নিয়ে নতুন করে স্কোয়াড গোছানোর কাজ করতে চায় তাঁরা।

বলা হচ্ছে নিলামে ধোনিদের নজরে রয়েছেন এই পাঁচ তারকা-
ট্রেন্ট বোল্ট: সিএসকে এমন একজন সিমারের সন্ধানে রয়েছে যিনি ডেথ ওভার এবং পাওয়ার প্লে-তে দুরন্ত বোলিং করতে পারবেন। লুঙ্গি এনগিদি সিএসকে স্কোয়াডে থাকলেও দলকে।ভরসা জোগাতে পারেননি। সিএসকে এই জন্যই টার্গেট করছে ট্রেন্ট বোল্টকে।

ত দুই মরশুমে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে বুমরার সঙ্গে জুটি বেঁধে বোল্ট বিপক্ষ ব্যাটিং লাইন আপে ত্রাসের সঞ্চার করেছিলেন। ফ্র্যাঞ্চাইজির জার্সিতে প্ৰথম মরশুমে কিউয়ি তারকা দলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হন। গত সিজনে আমিরশাহি পর্বে কিছুটা বিবর্ণ হলেও এখনও নিজের দিনে তিনি বিশ্বের সেরাদের মধ্যে অন্যতম। জানা যাচ্ছে, বোল্টকে পেতে কোটি কোটি টাকা খরচ করতে দ্বিধা করবেন না ধোনিরা।

স্যাম কুরান: মাত্র চারজনকস ধরে রাখার অপশন থাকায় কুরানকে রিটেন করতে পারেননি ধোনিরা। আইপিএল ২০২০-তে তরুণ ইংরেজ পেসারকে দারুণভাবে ব্যবহার করেছিলেন। সিএসকে সেই মরশুমে প্লে অফের আগে ছিটকে গেলেও কুরান আলো ছড়িয়ে গিয়েছিলেন। ৯ ম্যাচে ৯ উইকেট তুলে নিয়েছিলেন। ব্যাট হাতেও লোয়ার অর্ডারে ভরসা জোগাতে পারেন তিনি। সিএসকে নিলামে তারকা অলরাউন্ডারকে কিনে দলে ফেরাতে চাইছে।

ঈশান কিষান: সিএসকের জার্সিতে দুরন্ত খেলেও বয়সের কারণে রিটেনশন লিস্টে জায়গা পাননি ফাফ দু প্লেসিস। প্রোটিয়াজ সুপারস্টারকে ভবিষ্যতের কথা ভেবে ছেড়ে দিতে হয়েছে ধোনিদের। এমন অবস্থায় রুতুরাজ গায়কোয়াডের সঙ্গে একজন পরীক্ষিত ওপেনারকে দলে নিতে চাইছে সিএসকে।

এই জায়গাতেই চেন্নাই নজরে রাখছে ঈশান কিষানের ওপরে। রুতুরাজের সঙ্গে ঈশানের পার্টনারশিপ বিপক্ষের বোলারের মাথা ব্যাথা হয়ে উঠতে পারে।মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের তারকা খচিত ফ্র্যাঞ্চাইজির অন্যতম সেরা অস্ত্র ছিলেন ঝড়খন্ডি উইকেট কিপার-ব্যাটসম্যান। মুম্বই দলের অন্যতম উঠতি প্রতিভাকে কিছুটা বাধ্য হয়েই ছেড়ে দিয়েছে। এছাড়াও, ধোনি এক মরশুম পরেই আইপিএলকে বিদায় জানাতে পারেন। সেই সময় দলের উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান দুইই সামলাতে পারবেন ঈশান। ভবিষ্যতের জন্য ঈশান সিএসকের কাছে ভালো বিনিয়োগ হতে পারে।

রাহুল চাহার: রবীন্দ্র জাদেজা এবং মঈন আলি থাকলেও সিএসকে স্পিন বিভাগে বৈচিত্র্য নেই। আর চিপকের পিচে স্পিন ডিপার্টমেন্ট আরও শক্তিশালী করার জন্য সিএসকে এবার নিতে পারে রাহুল চাহারকে। মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের একাদশে অবিচ্ছেদ্য অংশ ছিলেন উঠতি এই তারকা স্পিনার।

মুম্বই আইপিএলে প্লে অফে উঠতে ব্যর্থ হলেও রাহুল চাহার নজর কেড়েছিলেন। দুরন্ত পারফরম্যান্সের সুবাদেই চাহার টি২০ বিশ্বকাপে জাতীয় দলের হয়ে জায়গা পেয়েছিলেন। ৪২ ম্যাচে ৪৩ উইকেট পাওয়া রাহুল চাহারকে সিএসকে পেতে ভালমত উদগ্রীব।

শার্দূল ঠাকুর: রিটেনশনের নিয়ম মেনে শার্দূল ঠাকুরকেও রিলিজ করে দিতে বাধ্য হয়েছিল সিএসকে। তবে ব্যাটে-বলে ভারসাম্য আনার জন্য শার্দূলকে ফের নিলামে কিনতে পারে চেন্নাই। মিডল ওভারে যেমন বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে বোলিং করে রান চোক করতে পারেন, তেমন ডেথ ওভারেও ধোনির পছন্দের শার্দূল। সিএসকের জার্সিতে ১৬ ম্যাচে ২১ উইকেট নিয়েছেন। টুর্নামেন্টে সবমিলিয়ে খেলেছেন ৬১ ম্যাচ। দখলে ৬৭ উইকেট।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.