দরজার ফাঁক দিয়ে দেখা গেল খোলামেলা পরীমনিকে

দেশ-বিদেশ ঘুরে বেড়াতেন পরীমনি। থাকতেন বিভিন্ন অভিজাত হোটেল ও রিসোর্টে। এর কিছুটা আঁচ পাওয়া যায় তার ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট ঘুরেই।

তবে সম্প্রতি পরীমনির বালি ভ্রমণের কিছু খোলামেলা ছবি প্রকাশ্যে এসেছে।

২০১৯ সালের বালি ভ্রমণে যান চিত্রনায়িকা পরীমনি। তখন পাঁচতারকা হোটেল টিএস স্যুটসে উঠেছিলেন তিনি।

শান্ত পরিবেশ আর ঝকঝকে নীল জলরাশি ও সাগরপাড় মিলিয়ে শান্তিতে সময় কাটানোর ক্ষেত্রে জুতসই জায়গা এটি।

হোটেল টিএস স্যুটসের ভেতরে পরীমনির সময়টা দারুণ কেটেছিল। সেটা তার ছবি দেখেই বোঝা যায়।

হোটেল রুমের দরজার ফাঁক দিয়ে তোলা তার স্বল্পবসনার ছবি এরই মধ্যে আলোচনায় এসেছে। এতে তাকে শুধু সাদা রঙের একটি অন্তর্বাস পরা দেখা যায়।

সেই শপিং করা, রেস্তোরাঁয় খেতে যাওয়া, সমুদ্রে গোসল, সুইমিং পুলে স্নানরত বিকিনি পরা ছবিও পোস্ট দিতে দেখা যায় ‘স্বপ্নজাল’ অভিনেত্রীকে। তবে স্বল্পবসনার এই ছবি নেটিজেনদের জন্য একেবারেই নতুন!

বালি দ্বীপপুঞ্জের পূর্বদিকে রয়েছে লম্বক দ্বীপপুঞ্জ। সেখানে সবচেয়ে জনপ্রিয় জায়গা হলো গিলি আইল্যান্ড। সাসাক ভাষায় গিলি মানে ছোট।

গিলি আইল্যান্ড তিনটি ছোট ছোট সুন্দর দ্বীপের সমন্বয়ে গঠিত। এগুলো হলো গিলি ত্রাওয়াংগান, গিলি মেনো আর গিলি এয়ার।

পরীমনি গিয়েছিলেন গিলি ত্রাওয়াংগানে। বালির পূর্ব উপকূল থেকে স্পিডবোটে গিলি আইল্যান্ডে যেতে সময় লাগে ১ ঘণ্টার মতো।

চলচ্চিত্রের সংশ্লিষ্টরা বলছেন, একসময় চলচ্চিত্রে অশ্লীলতা ছিল। সেই সময়টা এখন আর নেই।

কিন্তু সেই দর্শকরা কোনো নায়িকার ছবি এমন অর্ধ্ব নগ্ন অবস্থায় দেখেন তাহলে তো চলচ্চিত্রের মানুষের উপর দুর্নামটা একটু জোরালো হয়।

সিনেমার পর্দায় তার দুষ্টু-মিষ্টি হাবভাবের প্রেমে পড়েছেন অনেকেই। তবে শুধু অভিনয় নয়, বাস্তব জীবনেও তিনি একইরকম দুষ্টি-মিষ্টি।

গ্রেফতারের আগেও সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ সক্রিয় ছিলেন অভিনেত্রী। প্রায়ই নিজের ব্যক্তিগত জীবনের ছবি শেয়ার করে নেটিজেনদের রাতের ঘুম উড়িয়ে দিতেন তিনি।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.