তীরে এসে তরী ডুবলো ভারতের

কানপুর টেস্টের পঞ্চম দিনে শেষ বেলায় ভারতের হাত থেকে ম্যাচ বাঁচিয়ে নিল নিউজিল্যান্ড। আজাজ পটেল এবং রচিন রবীন্দ্রর জুটির সামনে ব্যর্থ হলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিনরা। শেষ উইকেটে ম্যাচ বাঁচালেন তাঁরা।

ভারতের জয়ের জন্য পঞ্চম দিনে দরকার ছিল ৯ উইকেট। প্রথম সেশনে একটিও উইকেট নিতে পারেননি রবিচন্দ্রন অশ্বিনরা। চিন্তা বাড়িয়ে দিয়েছিলেন ভারতীয় সমর্থকদের। কিন্তু দ্বিতীয় সেশনের শুরুতেই টম লাথাম এবং উইলিয়াম সমারভিলের জুটি ভেঙে দেন উমেশ যাদব।

রাতপ্রহরী সমেরভিলেকে ফিরিয়ে দেন তিনি। সেই সেশনে পড়ে তিনটি উইকেট। চা বিরতিতে যাওয়ার সময় ১২৫ রানে চার উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড। শেষ সেশনে দরকার ছিল ৬টি উইকেট।

কেন উইলিয়ামসনের উইকেট নেন রবীন্দ্র জাডেজা। জয়ের আশা বাড়ে ভারতের। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা সম্ভব হয়নি। রবীন্দ্র জাডেজা শেষ ইনিংসে চার উইকেট নেন। অশ্বিন নেন ৩ উইকেট। একটি করে উইকেট নিয়েছেন উমেশ যাদব এবং অক্ষর পটেল। শেষ উইকেটটি আর নিতে পারলেন না তাঁরা।

কানপুর টেস্টে জয়ের অন্যতম কাণ্ডারি অবশ্যই শ্রেয়স আয়ার। অভিষেক ম্যাচে শতরান এবং পরের ইনিংসে অর্ধশতরান করে নজর কাড়েন তিনি। প্রথম ইনিংসে পাঁচ উইকেট নিয়েছিলেন অক্ষর পটেল।

তাঁর ফলে ৪৯ রানের লিড পায় ভারত। দ্বিতীয় ইনিংসে ঋদ্ধিমান সাহার অপরাজিত ৬১ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংসে ভর করে নিউজিল্যান্ডকে ২৮৪ রানের লক্ষ্য দেয় ভারত।

সেই রান শেষ দিনে তোলা প্রায় অসম্ভব ছিল নিউজিল্যান্ডের পক্ষে। চেষ্টাও করেননি উইলিয়ামসনরা। ক্রিজে টিকে থাকার চেষ্টা করছিলেন তাঁরা। অশ্বিন, জাডেজাদের দাপটে একটা সময় জয়ের খুব কাছে চলে এসেছিল ভারত।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত উইকেটের সামনে দেওয়াল তুলে দেন আজাজ এবং রবীন্দ্র। ভারতের স্পিন আক্রমণের বিরুদ্ধে ব্যাট হাতে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন তাঁরা। কম আলোর জন্য খেলা বন্ধ হওয়ার আগে অবধি দুই ব্যাটার ১১৪ বল। তাতেই জয় হাতছাড়া ভারতের।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.