ঢাকায় ১৭ ডিসেম্বর মুখোমুখি হবে ভারত-পাকিস্তান

ভারত-পাকিস্তান খেলা মানেই টানটান উত্তেজনা। খেলার মাঠে কোন দলই হার মেনে নিতে চায়না। তবে শেষ হাসি হাঁসতে হয় যে কোন এক দলকেই।

নতুন খবর হচ্ছে, পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দল বর্তমানে বাংলাদেশ সফর করছে। এর মধ্যে মাঠে পতাকা নিয়ে প্রবেশ ও পাকিস্তানের সমর্থন নিয়ে নানা বিতর্ক শুরু হয়েছে।

এদিকে আগামী ১৪ ডিসেম্বর ঢাকায় শুরু হচ্ছে এশিয়ান চ্যাম্পিয়নস ট্রফি হকি টুর্নামেন্ট। ছয় জাতির এ টুর্নামেন্টে সবচেয়ে বড় দ্বৈরথ গ্রুপ পর্বেই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ। ম্যাচটি মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামে হওয়ার কথা ছিল আগামী ১৬ ডিসেম্বর।

কিন্তু সেদিন মহান বিজয় দিবস হওয়ায় ওই দিনের সব ম্যাচ পিছিয়ে দিতে এশিয়ান হকি ফেডারেশনকে অনুরোধ করেছিল বাংলাদেশ হকি ফেডারেশন। বাংলাদেশের অনুরোধে সাড়া দিয়েছে এশিয়ান হকি ফেডারেশন। এ জন্য ভারত-পাকিস্তান ম্যাচটি এক দিন পিছিয়ে ১৭ ডিসেম্বর নেওয়া হয়েছে।

শুধু ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচই নয়, সেদিনের মালয়েশিয়া-জাপান এবং বাংলাদেশ-দক্ষিণ কোরিয়া ম্যাচও এক দিন পিছিয়ে ১৭ ডিসেম্বর নেওয়া হয়েছে।

হকি ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইউসুফ জানিয়েছেন, ‌‘বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে অংশ নিতে অনেক দেশের রাষ্ট্রপ্রধান এবং সরকারপ্রধান সেদিন ঢাকায় থাকবেন।

যে কারণে ভারত ও পাকিস্তানের মতো দুই দলের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা দেওয়া কঠিন হতো। এ জন্যই আমরা ওই দিনের তিনটি ম্যাচই পিছিয়ে দেওয়ার অনুরোধ করেছিলাম। এশিয়ান হকি ফেডারেশন আমাদের আবেদনে সাড়া দেওয়ায় আমরা খুশি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *