ইতিহাসে প্রথম নারী গভর্নর হলেন : নিউইয়র্কের

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের গভর্নর হিসেবে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন ক্যাথি হকুল (৬২)। নিউইয়র্কের গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমো (৬৩) পদত্যাগ করার পরপরই ক্যাথির নাম ওঠে আসে।

১৪ দিনের মধ্যে কুমোর পদত্যাগ কার্যকর হবে। এরপরই নিউইয়র্কের ইতিহাসে প্রথম কোনো নারী গভর্নর হিসেবে দায়িত্ব পাবেন ক্যাথি।

যৌন হয়রানির অভিযোগে অপরাধ আইনে তদন্তের মধ্যে ১০ আগস্ট নিউইয়র্কের গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমো পদত্যাগের ঘোষণা দেন।

ক্যাথি মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্রেটিক পার্টির সদস্য ছিলেন। ক্যাথি ২০১৪ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনেও জয়ী হন। কিন্তু কুমোর মতো তারকা রাজনীতির জন্য গর্ভনর হতে পারেননি। এবার সেই বাধা কাটল।

তারকা রাজনীতিবিদ কুমোর দাপটে লেফটেন্যান্ট গভর্নর ক্যাথি এত দিন পদপ্রদীপের আড়ালেই ছিলেন। এখন তার সামনে আসার সুযোগ হলো।

ক্যাথি বলেছেন, তিনি নিউইয়র্কের ৫৭তম গভর্নরের দায়িত্ব পালনের জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত। গভর্নর কুমো পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়ে সঠিক কাজটিই করেছেন।

যৌন হয়রানির দায়ে ১০ আগস্ট অ্যান্ড্রু কুমো পদত্যাগ করেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনসহ অন্যরাও তাকে সরে দাঁড়াতে চাপ দিয়ে আসছিলেন। এছাড়া আইনগত চাপও ছিল। এর আগে তদন্তে তার বিরুদ্ধে এগারো নারীকে যৌন হয়রানির প্রমাণ পাওয়া গেছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে এক সময়ের প্রতিদ্বন্দ্বী বিবেচনা করা কুমোর আকস্মিক পতনে সবাইকে অবাক করে দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের চতুর্থ বৃহৎ জনবহুল রাজ্য নিউইয়র্কের গভর্নর হিসেবে ২০১১ সাল থেকে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন ডেমোক্র্যাটদলীয় কুমো।

এর আগে পাঁচ মাসের স্বাধীন তদন্তের পর প্রতিবেদন প্রকাশ করেন নিউইয়র্কের অ্যাটর্নি জেনারেল লেটিটিয়া জেমস। এতে বলা হয়, তিনি তার আচরণের মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও রাজ্যের আইন লঙ্ঘন করেছেন।

তবে যে কোনো ধরনের ভুল করার কথা অস্বীকার করেছেন কুমো। তিনি বলেন, নারীদের প্রতি অন্যায় আচরণের পুরো দায় আমি গ্রহণ করছি। মমতা কিংবা রসিকতার ছলে অসচেতনভাবে এমন অন্যায় হতে পারে বলে মনে করেন কুমো।

তিনি বলেন, দায়িত্বে থেকে অভিযোগের বিরুদ্ধে লড়লে রাজ্য সরকার অচল হয়ে পড়বে। যখন করোনাভাইরাস বড় ধরনের হুমকি তৈরি করেছে, তখন এই অচলাবস্থায় করদাতাদের কোটি কোটি ডলার ক্ষতি হবে।

এ গভর্নর বলেন, আমি মনে করি, পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে, পদত্যাগ করাই আমার জন্য ভালো পথ। এতে সরকারের কার্যক্রম স্বাভাবিকভাবে চলতে পারবে। আর এ কারণেই আমি পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছে।

১৬৮ পাতার প্রতিবেদনে দেখা গেছে, তিনি বর্তমান ও সাবেক নারী কর্মীদের শরীরে হাতড়েছেন, চুমো দিয়েছেন এবং যৌন ইঙ্গিতবাহী মন্তব্য করেছেন। এছাড়া যৌন অসদাচরণের অভিযোগ আনা এক নারীর বিরুদ্ধে তিনি প্রতিশোধ নিয়েছেন।

সূত্র: বিবিসি, রয়টার্স

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.